বিসিএস সম্পর্কে কিছু কথা


BCS Model Test
Bronze
TK. 500
400
  • Total Questions   200
  • Total Marks   200
  • Time   2 Hours
  • 5 Model Test
BCS Model Test
Silver
TK.1000
750
  • Total Questions   200
  • Total Marks   200
  • Time   2 Hours
  • 10 Model Test
BCS Model Test
Gold
TK.1500
1050
  • Total Questions   200
  • Total Marks   200
  • Time   2 Hours
  • 15 Model Test

বাংলাদেশের প্রেক্ষিতে সেরা আর স্বপ্নময় ক্যারিয়ার জব ‘বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (বিসিএস)’ ক্যাডার। এটি ১ম শ্রেণির গেজেটেড সরকারি কর্মকর্তার পদ। প্রথম শ্রেণির সরকারি এ কর্মকর্তাদের নিয়োগ দেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মহামান্য রাষ্ট্রপতি মহোদয়। নিয়োগ প্রক্রিয়ার আয়োজক ‘বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস কমিশন (বিপিএসসি)’। তাদের বিভিন্ন পর্যায়ে নিয়োগ প্রক্রিয়ার পর চূড়ান্ত তালিকা করে মহামান্য রাষ্ট্রপতির কাছে সুপারিশ পাঠানো হয়। এভাবেই বাংলাদেশের যে কোনো নাগরিক নির্দিষ্ট যোগ্যতায় আর নিয়োগ প্রক্রিয়ার পরীক্ষায় নিজেকে চৌকষ প্রমাণ করেই এই অভিজাত পেশায় প্রবেশ করে। স্বপ্নসময় সাফল্যের এই অভিযাত্রায় একজন নাগরিককে বুদ্ধিদ্বীপ্ত মেধার পরীক্ষায় যোগ্যতার প্রমাণ দিয়েই নিজের জায়গা করে নিতে হয়। সাধারণ ও পেশাগত দুই ধারায় মোট ২৮টি ক্যাডার রয়েছে বিসিএস-এ।

বিসিএস পরীক্ষা ০৩ টি ধাপে অনুষ্ঠিত হয়-

  • প্রিলিমিনারি পরীক্ষা
  • লিখিত পরীক্ষা
  • মৌখিক পরীক্ষা

বিসিএস ক্যাডারসমূহ

সরকারি প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তা নিয়োগের সর্ববৃহৎ আয়োজন বিসিএস ক্যাডারসমূহ। সাধারণ ও পেশাগত দুই ধারার ক্যাডার।

BCS Cadre List (as 40th BCS Circular)

(A) General Cadre
  • BCS Administration
  • BCS Audit and account
  • BCS Food
  • BCS Foreign Service
  • BCS Family planning
  • BCS Ansar
  • BCS Customs and duty
  • BCS Railway – transport and commercial
  • BCS Tax
  • BCS Commerce
  • BCS Cooperative
  • BCS Information
  • BCS Postal
  • BCS Police
  • BCS Economic
(B) Professional Cadre
  • BCS Agricultural
  • BCS Fisheries
  • BCS Food
  • BCS Health
  • BCS Information, Technical
  • BCS Road and highways
  • BCS Railway engineering
  • BCS Public health
  • BCS General Education, government colleges
  • BCS General Education, teachers’ training colleges

Minimum Qualification :

  • Educational Requirements :At least 4 years Bachelor’s degree or Masters Any Government Approved University
  • Experience Requirements: N/A
  • Additional Job Requirements: At last 0 Years
  • Age limit: 30 years

পরীক্ষার ধাপসমূহ

প্রিলিমিনারি পরীক্ষা : ২০০ নম্বরের নৈব্যক্তিক অভীক্ষা (MCQ) অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিটি সঠিক প্রশ্নের উত্তরে এক নম্বর। ভুল উত্তরের জন্য ০.২৫ নম্বর কাটা যাবে। মোট দশটি বিষয়। বিষয় ও মানবন্টন-

ক্র: নংবিষয়সমূহনম্বর বন্টন
১. বাংলা ভাষা ও সাহিত্য ৩৫
২. English Language and Literature ৩৫
৩. বাংলাদেশ বিষয়াবলি ৩০
৪. আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি ২০
৫. ভূগোল (বাংলাদেশ ও বিশ্ব), পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ১০
৬. সাধারণ বিজ্ঞান ১৫
৭. কম্পিউটার ও তথ্য প্রযুক্তি ১৫
৮. গাণিতিক যুক্তি ১৫
৯. মানসিক দক্ষতা ১৫
১০. নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও সুশাসন ১০
মোট = ২০০

সিলেবাসের বর্ণনা

  • ২০০ মার্কের পরীক্ষার জন্য ৪ ঘন্টা সময় এবং ১০০ মার্কের জন্য ৩ ঘণ্টা সময়।
  • কোনো পরীক্ষার্থী কোনো বিষয়ে উত্তীর্ণের জন্য ন্যূনতম ৩০% পেতে হবে।
  • Qualifying Mark হিসেবে লিখিত পরীক্ষায় শিক্ষার্থীকে ৫০% নম্বর পেতে হবে ।

মৌখিক পরীক্ষা

যে সমস্ত প্রার্থীরা লিখিত পরীক্ষায় সবমিলিয়ে ৫০% নম্বর পারে শুধুমাত্র তারাই মৌখিক পরীক্ষার জন্য নির্বাচিত হবে। লিখিত পরীক্ষার জন্য প্রার্থী বাছাই করণ প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ণ কমিশন কর্তৃক গঠিত বোর্ড সম্পন্ন করেন। মৌখিক পরীক্ষার জন্য বোর্ড গঠিত হয় কমিশন দ্বারা। মৌখিক পরীক্ষার কমিশন গঠিত হয় বোর্ড চেয়ারম্যান, একজন বিভাগীয় প্রতিনিধি (ন্যূনতম যুগ্ম সচিব) একজন দক্ষ ব্যক্তি যা নির্ধারিত হয় BPSC দ্বারা। কোনো প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্ব অথবা দেশের কোনো গন্যমান্য ব্যক্তি। যোগ্য প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য ভাইবা মনঃস্তাত্ত্বিক, কর্মশক্তি, এবং চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য বিবেচনায় রেখে প্রশ্ন করেন। এছাড়াও ভাইভা বোর্ড প্রার্থীর অতিরিক্ত দক্ষতা যাচাই করেন। যেমন- খেলাধূলা, বিতর্ক, শখ ইত্যাদি। মৌখিক পরীক্ষার জন্য মৌখিক ও মেধাদ্বীপ্ত প্রশ্ন মিলে মোট ২০০ নম্বর থাকে। সর্বনিম্ন ৫০% নম্বরকে মৌখিক পরীক্ষার জন্য উত্তীর্ণ নম্বর ধরা হয়।

আমাদের আয়োজন

প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া বিসিএস এর প্রথম ধাপ। প্রিলিমিনারি দিয়েই বৃহৎ অংশ বাছাই করা হয়। তাই বিসিএস এ অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ প্রিলিমিনারি পরীক্ষা। প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় ১০টি বিষয়ের মাধ্যমে মেধাবীর সাথে চৌকষ প্রার্থীও খুঁজে বের করা হয়। প্রাতিষ্ঠানিক ছাত্রজীবনের মতো একমুখি অবস্থানে পড়ে থাকা চলবে না। সার্বিক যোগ্যতা নিরূপণের জন্যই এই ১০টি বিষয় সাজানো হয়েছে। বিষয়ভিত্তিক আলোচনা আর এসবের উপর ভিত্তি করে বৈচিত্র্যময় প্রশ্নের সাথে নিজেকে গড়ে তুলতে হবে। এজন্য প্রয়োজন অনুশীলন আর অনুশীলন। আমরা বিগত প্রশ্ন আর আমাদের নিজস্ব তৈরি প্রশ্ন নিয়ে গড়ে তুলেছি বিশাল ভাণ্ডার। আমাদের ভাণ্ডার থেকে একজন শিক্ষার্থী নিজেকে যোগ্যতায় গড়ে তুলতে সহায়তা পাবে। আমাদের এখানে রয়েছে বিষয়ভিত্তিক নতুন নতুন প্রশ্ন। একই প্রশ্ন ভিন্ন ভিন্ন আঙ্গিকে উপস্থাপন। শুধুমাত্র চৌকষ ও বুদ্ধদ্বীপ্ততায় নিজেকে গড়ে তুলতে আমাদের এই আয়োজন।

আপনার প্রস্তুতি কেমন?

লেখা পড়ার বিকল্প নেই। মেধার সাথে বুদ্ধির চৌকষই বিসিএস পরীক্ষার পড়াশুনার ভিন্নতা। তাই বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় একই প্রশ্ন কৌশলগত রূপে বদলিয়ে দিতে পারে। যেমন, ‘ক্ষ’ এর উচ্চারণ শব্দের কোথায় বসলে ‘খ’ এর মত উচ্চারিত হয়? ঠিক এই প্রশ্নটি আবার এইভাবে হতে পারে, ’ক+ষ’ এর যুক্তবর্ণ খ এর মতো কখন উচ্চারিত হয়? এভাবেই মেধার সাথে বুদ্ধির কৌশলই বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষার মূল উপাদান। প্রার্থীকে প্রচলিত প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার বাইরে এমন প্রস্তুতি নিতে হবে যাতে ঐ ধরণের মেধা আর বুদ্ধিদ্বীপ্ত প্রশ্নের সমাধান বের করতে পারে। এমন প্রস্তুতি নিতে গিয়ে প্রার্থীর কাছে অনেক সময় অগোছানো মনে হতে পারে। ঘাবড়ানোর মতো মনে হতে পারে। আসলে ঘাবড়ানোর কিছু নেই। আমাদের সাজানো অনুশীলন প্রক্রিয়ায় প্রার্থীরা বার বার অনুশীলন করে নিজের সক্ষমতাকে মজবুত করতে পারবে।

আমাদের থেকে সুবিধাপ্রাপ্তি

সময়কে নষ্ট না করে সর্বোচ্চ সদ্ব্যবহারে অনলাইনে অনুশীলনমূলক প্রিপারেশন টেস্ট দিতে পারবে। আমাদের কেন্দ্রে বসে সরাসরি Mock Exam হুবহু বিসিএস প্রিলিমিনারির মতোই অনুষ্ঠিত হবে।

নিজের দূর্বল বিষয়গুলোকে চর্চায় আরো মজবুতি করতে আমাদের অনলাইন প্রিপারেশন টেস্টগুলো বিশেষ উপযোগী। নির্দিষ্ট বিষয় নিয়ে বা সবগুলো বিষয় নিয়ে বার বার প্রিপারেশন টেস্ট দিতে পারবে। প্রতিটি পরীক্ষাতেই স্ব স্ব বিষয়ের নতুন নতুন প্রশ্নে পরীক্ষা নেওয়া হবে আর এভাবেই অনুশীলনে একজন প্রার্থী সক্ষমতায় নিজেকে গড়ে তোলার পথ পাবে।

আমাদের বিষয়ভিত্তিক পাঠ আলোচনা

প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ১০টি বিষয়ের প্রতিটির জন্য রয়েছে Discuss বা পাঠ আলোচনা। প্রিলিমিনারির প্রস্তুতির জন্য উপযোগী করে করে সাজানো আমাদের এই পাঠ আলোচনা। আমাদের সদস্যরা আমাদের পাঠ আলোচনা থেকে পাঠ প্রস্তুতি ও অনুশীলন করতে পারবে। পাঠ আলোচনায় কোনো সদস্যের নতুন কোনো প্রশ্ন জানার প্রয়োজন হয়ে নির্ধারিত কমেন্ট বক্সে তা করা যাবে। আমরা ৭২ ঘণ্টার মধ্যে সে প্রশ্নের উত্তর দিব।

আমাদের সদস্যদের জন্য এটিও একটি বাড়তি পাওনা।

আমাদের পরীক্ষার প্রকৃতি

প্রিপারেশন টেস্ট (যে কোনো ০৩ বিষয়)

পেশাগত BCS সিলেবাসের প্রার্থীর পছন্দনীয় যে কোনো ০৩টি বিষয়ে ১০০ নম্বরের MCQ প্রিপারেশন টেস্ট নেওয়া হবে। পরীক্ষার সময় ১ ঘন্টা। পরীক্ষা অনলাইনে নেওয়া হবে। একজন শিক্ষার্থী যে কোনো সংখ্যক টেস্ট দিতে পারবে।

প্রিপারেশন টেস্ট (সকল বিষয়)

নির্ধারিত মূল পরীক্ষার নির্ধারিত সিলেবাসের সবগুলো বিষয় নিয়ে ১০০ নম্বরের MCQ পরীক্ষা নেওয়া হবে। পরীক্ষা অনলাইনে নেওয়া হবে। একজন শিক্ষার্থী যে কোনো সংখ্যক টেস্ট দিতে পারবে।

Mock Exam

নির্ধারিত মূল পরীক্ষার আদলে নির্ধারিত সিলেবাসের পূর্ণমান ও সময় অনুযায়ি পরীক্ষা হলে Mock Exam নেওয়া হবে। প্রতি ভুল উত্তরে ০.২৫ নম্বর কাটা হবে। পরীক্ষা আমাদের নিজস্ব কেন্দ্রে প্রতি মাসের ২য় ও ৪র্থ শনিবার অনুষ্ঠিত হবে।

সময় : সকাল ৯-৩০ টা ও বিকাল ৩-০০ টা। স্থান SMS এর মাধ্যমে জানানো হবে। একজন শিক্ষার্থী সকাল বা বিকাল যে কোনো সময়ে যতবার ইচ্ছে Mock Exam দিতে পারবে।

যে প্রশ্নগুলো জানা দরকার

বিগত বিসিএস এর প্রশ্ন এবং আমাদের তৈরি প্রশ্ন মিলে আমাদের বিশাল প্রশ্ন ভাণ্ডার রয়েছে। এ প্রশ্ন ভাণ্ডার থেকে প্রার্থীরা বিষয়ভিত্তিক প্রস্তুতি পরীক্ষা কিংবা Mock Exam এর মাধ্যমে অনুশীলনের সুযোগ পাবে। এমন অনুশীলন আর চর্চায় একজন প্রার্থী নিজের দুর্বল বিষয়গুলো সম্পর্কে আরও সচেতন হয়ে গড়ে উঠতে পারবে। সার্বিকভাবে কোর্সটি একজন প্রার্থীকে প্রতিটি বিষয়ে গড়ে উঠতে সহায়তা করবে। নিজের সক্ষমতা বাড়িয়ে যোগ্যতায় আস্থাবান হতে সহায়তা করবে।

আমাদের এখানে প্রিপারেশন টেস্ট এর দুটি প্যাকেজ। ১ম প্যাকেজ- প্রাথীর পছন্দনীয় যে কোনো ৩টি বিষয় নিয়ে ১০০ নম্বরের প্রিপারেশন টেস্ট। ২য় প্যাকেজ- ১০টি অর্থাৎ সবগুলো বিষয় নিয়ে ১০০ নম্বরের প্রিপারেশন টেস্ট।

একজন প্রার্থী প্রতি প্যাকেজে ২টি করে মোট ৪টি প্রিপারেশন টেস্ট দিতে পারবে।

এই সিলেবাসে ১০টি বিষয়ে সাজানো আছে। একজন চৌকষ প্রার্থী নির্বাচনে এ ১০টি বিষয় যথাযথ। শিক্ষাজীবনের মাধ্যমিক স্তর থেকে উচ্চ মাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত বিষয়গুলোই প্রাধান্য পেয়েছে। এর সাথে বাংলাদেশ ও বিশ্বের সমসাময়িক ঘটনা, তথ্য-উপাত্তের বিষয়গুলোও থাকে। আমাদের উপস্থাপিত কোর্সের পরীক্ষাসমূহে পুরো সিলেবাসটাই প্রার্থীর প্রস্তুতির উপযোগী করে তৈরি করা। এখান থেকে প্রস্তুতি নিয়ে একজন প্রার্থী নিজেকে পরীক্ষার জন্য প্রস্তুত করতে পারবে। এই সিলেবাসের এবং আমাদের আয়োজন একজন প্রার্থীর প্রস্তুতি নেওয়ার উপযোগী যথেষ্ঠ আয়োজন।

প্রতিটি বিষয়ের সর্বশেষ তথ্য, তত্ত্ব সংযোজন করা হয়েছে। বিষয়কে ভালভাবে ধারণ করার জন্য সিলেবাসের সীমায় খুঁটিনাটি প্রশ্নও সংযোজন করা হয়েছে। কৌশলী বুদ্ধিদ্বীপ্ত প্রশ্নেও সাজানো হয়েছে। বিগত বছরের পরীক্ষার প্রশ্নও রাখা হয়েছে। আমাদের রকমারী প্রশ্ন আর বিগত প্রশ্নের সমন্বয়ে প্রার্থীকে সক্ষমতায় গড়ে তোলার মত করে সিলেবাসটি আমরা সাজিয়েছি।

এখানে অনুশীলন আর চর্চা করে প্রার্থীকে আস্থাবান করে তুলবে।

Mock Exam হুবহু BCS পরীক্ষার মতো করে নেওয়া হবে। সঠিক উত্তরে পূর্ণ নম্বর, ভুল উত্তরে ০.২৫ নম্বর কাটা যাবে। আমাদের কেন্দ্রে এসে পরীক্ষা দিতে হবে। মূল পরীক্ষার আগে ওয়ার্মআপ পরীক্ষা হিসেবে Mock Exam-টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও উপযোগি। একজন প্রার্থী সর্বোচ্চ ৩টি Mock Exam দিতে পারবে।

একজন প্রার্থীকে কোচিং সেন্টারে গিয়ে প্রস্তুতি নিতে হয়। এতে ব্যয় অনেক। আবার যাতায়াত ও অন্যান্য কারণেও সময় নষ্ট হয়। এমন প্রস্তুতিক্ষণে প্রার্থীর সময় নষ্টের কোনোই সুযোগ নেই। আমাদের Online প্রিপারেশন টেস্ট কিংবা Mock Exam প্রার্থীর সময় এবং অর্থ সাশ্রয় করবে। প্রস্তুতির ক্ষেত্রে প্রচলিত প্রথার চেয়ে আমরা একধাপ এগিয়ে। তাই আমাদের কোর্সটি ক্রয় করা প্রার্থীর জন্য সুবুদ্ধির পরিচয় বলেই মনে করি।

নির্ধারিত ফি দিয়ে পছন্দনীয় কোর্সে অংশ নিতে পারে একজন প্রার্থী। বিকাশের মাধ্যমে কোর্স ফি জমা দেওয়ার পর আমরা ম্যাসেজ নিশ্চিত হব। আমরা নিশ্চিত হওয়ার পাই তার জন্য নির্ধারিত প্যাকেজ একটিভ হবে।

নির্ধারিত মেয়াদে প্রার্থী কোনো পরীক্ষায় অংশ নিতে না পারলে তা আপনা আপনি লক হয়ে যাবে। সেক্ষেত্রে ঐ লক হওয়া পরীক্ষায় পুনরায় অংশ নিতে হলে, তার পাসওয়ার্ড জানিয়ে ম্যাসেজ দিয়ে আমাদেরকে জানাতে হবে। আমরা যুক্তিসঙ্গত কারণ ছাড়া পুনরায় পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ করে দেব। এভাবে একজন প্রার্থীকে ২ বারের বেশি সুযোগ দেওয়া হবে না।

যদি কোনো নতুন প্রশ্ন জানার থাকে বা কোনো প্রশ্ন সম্পর্কে মতামত বা আরও তথ্য-তত্ত্ব জানার থাকে, সে ব্যবস্থাও করা আছে। নির্ধারিত কমেন্ট বক্সে প্রশ্ন বা মতামতটি দিতে হবে। মতামত ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই জানানো হবে। আর নতুন প্রশ্ন বা প্রশ্ন সংক্রান্ত জিজ্ঞাসা হলে সর্বোচ্চ ৭২ ঘণ্টার মধ্যে জানানো হবে।