Junior School Certificate(JSC) - Class Eight


মাধ্যমিক স্তরের ১ম পাবলিক পরীক্ষা ৮ম শ্রেণির সমাপনী Junior School Certificate বা JSC. সারা দেশের সকল শিক্ষা বোর্ড একযোগে একযোগে এ পরীক্ষা গ্রহন করে। JSC-ই ৮ম শ্রেণির সমাপনী মূল্যায়ন। JSC-র পরই ৯ম শ্রেণির মাধ্যমে SSC-র যাত্রা শুরু। এদিক বিবেচনা করলে JSC খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি পাবলিক পরীক্ষা। পূর্ববর্তী শ্রেণিগুলোর মতই একই বিষয়াবলীতে JSC পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। JSC পর্যন্ত বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থা একমুখি ধারা; অর্থাৎ বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা, মানবিক বিভাগে শিক্ষাবিভাজন নেই।

সারা বছর স্কুলগুলো নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় শিক্ষা প্রদান করে। নির্দিষ্ট পিরিয়ডে বছরের ১০ মাস পর্যন্ত ক্লাস প্রস্তুতিমূলক পরীক্ষাসমূহ গ্রহণ করে। স্কুলের শ্রেণিগুলোতে অনেকের সাথে শিক্ষার্থীর স্বল্প সময়ের পিরিয়ডে ক্লাস করে। শৈশব স্বভাবের স্বাভবিকতায় ক্লাসেই সব শিক্ষা আয়ত্ব করা সম্ভব হয়ে ওঠে না ওদের। আর তাই অভিভাবকরা শিক্ষার্থীর পাঠঅনুশীলনে ব্যক্তিগত উদ্যোগ গ্রহণ করেন। এক্ষেত্রে ব্যক্তিগত পর্যায়ে শিক্ষক ব্যবস্থাপনাই যথার্থ মাধ্যম। অপ্রাতিষ্ঠানিক এ রেওয়াজ যুগ যুগ ধরেই আমাদের সমাজ ব্যবস্থায় চলে আসছে।

ব্যক্তিগত এমন উদ্যোগে প্রতিটি বিষয়েই পাঠঅনুশীলন সম্ভব হয়ে ওঠে না। অনেকেই সামর্থ্যের অভাবে পিছিয়ে পড়ে। আবার সর্বত্র মানসম্মত ব্যক্তিগত শিক্ষকের অভাবে যথাযথ পাঠঅনুশীলনের বিঘ্ন ঘটে।

BD Online Academy-র মাধ্যমে আমরা এসব দিকগুলোকে সামনে রেখে মানসম্মত পাঠঅনুশীলনে প্রযুক্তিভিত্তিক ব্যবস্থা গড়ে তুলেছি। JSC-র জন্যও পরিকল্পিত আর মানসম্মত পাঠঅনুশীলন কর্মসূচি নিয়েছি।

প্রতিটি ধাপেই স্কুল পরীক্ষা হোক, পাবলিক পরীক্ষা হোক একজন শিক্ষার্থীকে পূর্ণ প্রস্তুতি নিয়ে পরীক্ষায় অংশ নিতে হয়। পাঠ্য বইয়ের পূর্ণ সিলেবাসই তাকে অধ্যয়ন ও চর্চা করতে হয়। এ শিক্ষা ব্যবস্থা থেকেই ভবিষ্যতের প্রত্যাশায় একজন শিক্ষার্থীকে নিজের জীবন গড়ে তুলতে হয়।

কোমলমতি শিক্ষার্থীদের যথাযথ পাঠঅনুশীলনে বেড়ে ওঠার সুযোগ দিতেই আমাদের আয়োজন। দেশের যে কোনো প্রান্তের একজন শিক্ষার্থীও যেন যথাযথ পাঠঅনুশীলনের মাধ্যমে নিজেকে গড়ে তুলতে পারে। ভবিষ্যতের স্বপ্নকে এগিয়ে নিতে পারে- তারই আয়োজন BD Online Academy.

৮ম শ্রেণির শিক্ষা ব্যবস্থা : বিষয়াবলী ও মান বন্টন

৮ম শ্রেণির শিক্ষা ব্যবস্থা বিদ্যালয়ভিত্তিক। দেশে প্রতিষ্ঠিত সরকারি ও বেসরকারি বিদ্যালয়সমূহ এ শিক্ষা প্রদান করে থাকে। সরকারের সুনির্দিষ্ট নীতিমালায় এ শিক্ষাব্যবস্থা পরিচালিত হয়। বছরে দুটি পরীক্ষা নেওয়া হয় স্কুল ভিত্তিতেই। ৭ম শ্রেণির জন্য প্রবর্তীত এ শিক্ষা ব্যবস্থা রাষ্ট্রীয় নীতিমালায় গৃহিত এবং দেশের সর্বত্র একই ধারায় গড়ে তোলা হয়েছে। পরীক্ষা সৃজনশীল ও নৈর্ব্যক্তিক অভীক্ষায় (MCQ) গ্রহণ করা হয়।

৮ম শ্রেণিতে বা JSC-তে ঐচ্ছিক বিষয়সহ মোট বিষয় সংখ্যা ১৪টি। ১০০০ নম্বরের মধ্যে ১৪টি বিষয়কে সমন্বয় করা হয়েছে।

প্রশ্নভিত্তিকি নম্বর বন্টন-
১.বাংলা ১ম পত্র : সৃজনশীল-৭০ নৈর্ব্যক্তিক অভীক্ষা-৩০ মোট= ১০০ নম্বর
২.বাংলা ২য় পত্র : রচনামূলক-৩৫ নৈর্ব্যক্তিক অভীক্ষা-১৫ মোট= ৫০ নম্বর
৩. ইংরেজি ১ম পত্র :Reading-60Writing-40Total=100
৪. ইংরেজি ২য় পত্র : Grammae-30 Compisition-20 Total=50
৫. গণিত : সৃজনশীল-৭০ নৈর্ব্যক্তিক অভীক্ষা-৩০ মোট= ১০০ নম্বর
৬. বিজ্ঞান : সৃজনশীল-৭০ নৈর্ব্যক্তিক অভীক্ষা-৩০ মোট= ১০০ নম্বর
৭. বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় : সৃজনশীল-৭০ নৈর্ব্যক্তিক অভীক্ষা-৩০ মোট= ১০০ নম্বর
৮. ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা : সৃজনশীল-৭০ নৈর্ব্যক্তিক অভীক্ষা-৩০ মোট= ১০০ নম্বর
৯. কৃষিশিক্ষা বা গার্হস্থ্য বিজ্ঞান : সৃজনশীল-৭০ নৈর্ব্যক্তিক অভীক্ষা-৩০ মোট= ১০০ নম্বর
১০. তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি : সংক্ষিপ্ত-২৫ নৈর্ব্যক্তিক অভীক্ষা-২৫ মোট= ৫০ নম্বর
১১. কর্ম ও জীবনমুখি শিক্ষা : রচনামূলক-৩৫ নৈর্ব্যক্তিক অভীক্ষা-১৫ মোট= ৫০ নম্বর
১২. শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য : তত্ত্বীয়-নৈর্ব্যক্তিক অভীক্ষা-২৫ ব্যবহারিক-২৫ মোট= ৫০ নম্বর
১৩. চারু ও কারুকলা : রচনামূলক-১০ অঙ্কনভিত্তিকি-২৫ নৈর্ব্যক্তিক অভীক্ষা-১৫ মোট= ৫০ নম্বর
উল্লেখ্য যে, একজন শিক্ষার্থী কৃষিশিক্ষা বা গার্হস্থ্য বিজ্ঞান এর যে কোনো একটি নিতে পারবে। দুটো বিষয়ই একজন শিক্ষার্থী নিতে পারবে না।

আমাদের আয়োজন

প্রবর্তীত সিলেবাসের আলোকে আমরা শুধু শিক্ষার্থীর পাঠঅনুশীলনের ব্যবস্থা করেছি। ব্যক্তিগত উদ্যোগে প্রতিটি বিষয়ে পাঠঅনুশীলন অনেক ব্যয় ও সময় সাপেক্ষ। দেশের সর্বত্র যথাযথ শিক্ষকের অপ্রতুলতাও কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পিছিয়ে পড়ার একটি কারণ। আমরা সে দিকটি বিবেচনায় রেখেই দেশের যে কোনো প্রান্ত থেকে মানসম্মত পাঠঅনুশীলনের সুযোগ করে দিচ্ছি। প্রযুক্তিগত সুবিধাকে কাজে লাগিয়ে এগিয়ে যাওয়া উন্নত বিশ্বের মত আমরাও এগিয়ে যেতে চাই। আমাদের রয়েছে নির্ধারিত সিলেবাসভিত্তিক পাঠঅনুশীলনমূলক আলোচনা। নতুন নতুন সৃজনশীল আর নৈর্ব্যক্তিক অভীক্ষার (MCQ) প্রশ্ন। ঘরে বসেই অনুশীলন আর পরীক্ষা নিয়ে নিজেকে গড়ে তোলার এক চমৎকার আয়োজন আমাদের ব্যবস্থাপনায়

আমাদের থেকে সুবিধাপ্রাপ্তি

নির্ধারিত ফি দিয়ে আমাদের সদস্য হতে হবে। আমাদের সদস্য দুই ধরনের- ষান্মসিক ও বার্ষিক। দেশের যে কোনো প্রান্তের সদস্যরা আমাদের সাইট থেকে প্রতিটি বিষয়ের প্রতিটি অধ্যায়ের আলোচনা পড়তে পারবে। পাঠঅনুশীলনে এসব পাঠ খুবই তাৎপর্যপূর্ণ। আমাদের এখন থেকে অনলাইনে MCQ এবং ঢাকায় অথবা জেলাভিত্তিক আমাদের কেন্দ্রে এসে সৃজনশীল প্রস্তুতিমূলক পরীক্ষা দিতে পারবে।

কীভাবে অংশ নিবেন?

আমাদের সাথে সব যোগযোগ করবেন সম্মানিত অভিভাবকবৃন্ধ। সন্তানের সুন্দর আগামী গঠনে আমাদের এ অনুশীলন কার্যক্রম। আমাদের সাথে যুক্ত হতে সরাসরি কথা বলুন আমাদের হটলাইন নাম্বার- 01708455075. পছন্দনীয় প্যাকেজ অনুযায়ী বিকাশের মাধ্যমে ফি পরিশোধ করুন। বিকাশ নং- 01708455076 নাম্বারে আপনার ফি নিশ্চিত হলেই আপনাকে একটি পাসওয়ার্ড দেওয়া হবে। আমাদের প্যাকেজ ব্যবহারে এই পাসওয়ার্ড সবসময় প্রয়োজন হবে।

বিকাশে পেমেন্ট করার নিয়ম

*247# → 3. Payment → Merchant bKash Account No : (01708455076) → Enter Amount →Enter Reference : (Candidates Mobile No.) → Enter Counter No: 1 → Your PIN No → Send.

যে প্রশ্নগুলো জানা দরকার

পাঠবইগুলোর প্রতিটি অধ্যায় বা গল্প নিয়ে অনুশীলন উপযোগী আলোচনা করা হয়েছে। সৃজনশীল প্রশ্নের জন্য নতুন উদ্দীপক তৈরি করা আছে। উদ্দীপকগুলোকে প্রশ্ন তৈরির আলোকে আলোচনা করা হয়েছে। একজন শিক্ষার্থী যেন তার পাঠ্যবিষয়ে নিজেকে গড়ে তুলতে পারে, আমাদের আয়োজনে সে দিকটিকে প্রাধান্য দিয়েছি। আমরা দৃঢ় প্রত্যয়ী আমাদের কোর্সটি অর্থ ও সময় সাশ্রয়ে একজন শিক্ষার্থীর পূর্ণ শিক্ষাকার্যক্রম হিসেবে বিবেচিত হবে।

মাধ্যমিক স্তরে JSC-ই প্রথম পাবলিক পরীক্ষা। সারা দেশে ৮টি বোর্ডের মাধ্যমে JSC পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়। আমাদের আয়োজনও সারাদেশে। যে কোন প্রান্তের যে কোনো স্থানের শিক্ষার্থীরাই আমাদের পাঠগ্রহণ করতে পারবে। তাই আমরাও বোর্ডভিত্তিক পাঠ সাজিয়েছি। কোনো প্রকার দ্বিধা ছাড়াই স্ব স্ব বোর্ডের শিক্ষার্থীরা আমাদের পাঠ গ্রহণ করতে পারবে।

স্কুলের বোর্ড নির্ধারিত পাঠ্যবই আমাদের আলোচনা ও শিক্ষা প্রদানের প্রধান উপকরণ। পাঠ্যবই ভিত্তিক NCTB-র পাঠক্রম অনুসারে আমরা আমাদের সিলেবাস সাজিয়েছি। দ্বিধাহীনভাবে আমাদের সিলেবাস অনুযায়ী পাঠগ্রহণ করতে পারবে যে কোনো শিক্ষার্থী। খুবই উপযোগী আমাদের এ কোর্সটি।

পাঠ্যবিষয়ের যে কোনো বিষয় সম্পর্কে শিক্ষার্থীর নতুন কোনো প্রশ্ন জাগতে পারে। জাগতে পারে শিক্ষার্থীর অভিভাবকেরও। আমাদের কমেন্ট বক্সে সে প্রশ্ন পাঠালে আমরা ৭২ ঘন্টার মধ্যে সে প্রশ্নের সমাধান দিয়ে শিক্ষার্থীর পাঠগ্রহণকে সহজ করে দেওয়া হবে। পাঠ্যবিষয়ক ছাড়া ব্যক্তিগত কোনো প্রশ্ন না করার অনুরোধ রইল।

অর্থের সাশ্রয়ে দেশের যে কোন প্রান্ত থেকে একই মানসম্মত শিক্ষাগ্রহণ এ কোর্সটির প্রধান বৈশিষ্ট্য। প্রতিটি বিষয়ের মানসম্মত পাঠ প্রদান করা হচ্ছে। সময়ও বেঁচে যাচ্ছে। কোমলমতি শিক্ষার্থীর উপর স্কুল ও ব্যক্তিগত উদ্যোগের পড়াশুনায় সময়ের যে চাপ এখানে তা নেই। ঘরে বসেই যখন প্রয়োজন তখনই পাঠগ্রহণ করতে পারছে। এভাবেই অর্থ ও সময় দুটোই বেঁচে গিয়ে মানসম্মত শিক্ষার সুফল দিচ্ছে এ কোর্সটি।